Home > Editor’s Choice > ‘বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জেতার যোগ্যতা রাখে’
Editor’s Choiceখেলাধুলা

‘বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জেতার যোগ্যতা রাখে’

 

সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে বসেছিল সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভাল। এতে রেনেসাঁ গ্রুপ রাজশাহী মাস্টার্সের অধিনায়ক হিসেবে খেলেছেন সাবেক অধিনায়ক এবং উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান খালেদ মাসুদ পাইলট। কার্নিভালের ফাঁকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তিনি কথা বলেছেন। সাক্ষাতকার নিয়েছেন ইফতেখার শুভ

মাস্টার্স ক্রিকেট কার্নিভাল কেমন উপভোগ করছেন?

পাইলট: খুবই ভালো। যদিও আবহাওয়ার কারনে পুরো ওভারে ক্রিকেট হচ্ছে না। তারপরও সব সাবেক ক্রিকেটারদের সাথে দেখা হওয়ায় আনন্দ হচ্ছে। আমি এটাকে সুন্দর একটা মিলন মেলা বলব। এর মাধ্যমে সকল সাবেক ক্রিকেটারদের মধ্যে সম্পর্ক তৈরী হবে।

আয়োজনটি প্রতি বছর হওয়া উচিত না?
পাইলট: আমি আশাবাদী এ আয়োজনটি প্রতি বছরই হবে। কারন আমি সবার মধ্যে আগ্রহ দেখছি। যদিও এটি বাংলাদেশ ক্রিকেটের কোন উন্নতি করবে না। তবে এ আয়োজনের মাধ্যমে আমরা কিছু সামাজিক কাজে অংশ নিতে পারবো। ভবিষতে এখান থেকে একটি ফান্ড তৈরী করে আর্থিকভাবে অসচ্ছল ক্রিকেটারদের সাহায্য করতে পারি।

কার্নিভালটি সারা দেশে কিভাবে ছড়িয়ে দেওয়া যায়?
পাইলট: এবার এটি কক্সবাজারে হলো। সামনের আসরগুলো যদি যশোর, সিলেটসহ বিভিন্ন জেলায় এর আয়োজন করা যায় তাহলে দর্শকদের সম্পৃক্ততা বাড়বে। আমার ধারণা জেলা শহরগুলোতে কার্নিভালের আয়োজন করা হলে প্রচুর দর্শক সমাগম হবে। এছাড়া সামনের বছর আমরা চেষ্টা করবো বিদেশী সাবেক তারকা ক্রিকেটাররা যার ঢাকা লিগে অংশ নিয়েছে তাদের এ টুর্নামেন্টে সম্পৃক্ত করাতে।

সাবেক ক্রিকেটারা কিভাবে বোর্ডের সাথে আরো বেশী সম্পৃক্ত হতে পারে?
পাইলট: দেখুন অনেক সাবেক ক্রিকেটারাই কিন্তু বোর্ডের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত। আর অন্যরা কিন্তু তাদের বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে বোর্ডকে সাহায্য করতে পারে।

বিদেশী কোচের স্থলে দেশী কোচরা কি ভূমিকা রাখতে পারে না?
পাইলট: দেখুন, বিদেশী কোদের কিন্তু অবশ্যই দরকার আছে। ভারতের মতো দলও কিন্তু এখনো বিদেশীদের উপর নির্ভরশীল। তাছাড়া আমাদের দেশের খুব কম কোচই আছেন যারা ক্রিকেট নিয়ে গবেষণা করেন। তবে আমাদের কিন্তু মেধা আছে। এটি কাজে লাগানো উচিত।

আপনাদের সময়ের দলের সঙ্গে বর্তমান দলের পার্থক্য কি?
পাইলট: আমার আমাদের সিনিয়রদের দেখে ক্রিকেট শিখেছি। আবার আমাদের দেখে অন্যরা শিখেছে। আমরা খুবই কম খেলার সুযোগ পেয়েছি। কিন্তু পরিস্থিতি এখন ভিন্ন। দল এখন জয়কে অভ্যাসে পরিনত করেছে।

ওয়ানডেতে ভালো খেললেও টেস্টে কিন্তু আমারা এখনো পিছিয়ে?
পাইলট: টেস্টে ভালো খেলতে সময়ে বেশী লাগবেই। স্কিল আরো উন্নতি করতে হবে। সংক্ষিপ্ত ভার্সনের খেলায় ছোট এবং বড় দলগুলোর মধ্যে পার্থক্য কমে যায়। কিন্তু পাচ দিনের খেলায় সব ডিপার্টমেন্টে ভালো করতে হয়।

মাশরাফির অধিনায়কত্ত্ব দলকে কি বাড়তি কিছু দিচ্ছে না?
পাইলট: মাশরাফি খুবই ভালো একজন লিডার। কিছুদিন আগেও দলের মধ্যে একটা ভাঙন ছিল। কিন্তু ও পুরো দলকে এক করেছে। সব মিলিয়ে ও খুব ভালো করছে।

বাংলাদেশ কবে বিশ্বকাপ জিততে পারে?
পাইলট: আমি মনে করি বাংলাদেশ এখন যে লেভেলের ক্রিকেট খেলছে তাতে যেকোন মূহুর্তে বিশ্বকাপ জিততে পারে। ২০০৩ সালে কেনিয়া সেমিফাইনালে খেলেছে। বাংলাদেশও কিন্তু ইতোমধ্যে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে।

মোহাম্মদ আশরাফুলের ফেরাকে কিভাবে দেখছেন?
পাইলট: আমি মনে করি সে অন্যায় করেছে এবং তার শাস্তি সে পেয়েছে। ভুল মানুষই করে। এখন অন্য ক্রিকেটারদের মতো তাকেও বিবেচনা করা উচিত। এতে দলের মেধ্যে ভালো খেলার প্রতিযোগিতা আরো বাড়বে। আশরাফুলের এখনো দল এবং দেশকে দেওয়ার মতো অনেক কিছু আছে।