Home > নতুন মুখ > মডেল রাতুলের জন্মদিনে এক’শ গোলাপের শুভেচ্ছা
নতুন মুখ

মডেল রাতুলের জন্মদিনে এক’শ গোলাপের শুভেচ্ছা

 

শুভসকাল ডেস্ক : পঞ্জিকার পাতা ঘুরে ফিরে প্রতি বছরের মত এবারও ফিরে এসেছে ৩ ফেব্রুয়ারি। আজ তরুণ প্রতিভাবান মডেল ও সফল ব্যবসায়িক উদ্যোক্তা তামিম হাসান রাতুলের শুভ জন্মদিন। রাত ১২টা ০১ থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ও তাঁকে ফোনে কল করে বা ম্যাসেজের মাধ্যমে তাঁর ভক্ত, অনুরাগী বন্ধু-বান্ধব, শুভাকাংঙ্খিরা জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছে।
রাতুল জনপ্রিয় পোষাকের ব্র্যান্ড তামিম’স লাইফ ষ্টাইলের কর্ণধার, রাজধানী ঢাকার হাতিরঝিলে অবস্থিত অলিভ ক্যাফে এন্ড রেষ্টুরেন্টের ব্যবসায়িক অংশিদার এবং পারিবারিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তামিম ট্রেডিং [বিডি.] এর প্রধান নির্বাহী পরিচালক।
এছাড়াও তিনি বর্তমানে বনানীর এন.আই.এফ.টি-তে ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়াশুনা করছেন। ছোটবেলা থেকেই তার ইচ্ছা ছিল শোবিজ অঙ্গনে কাজ করার। তাই ২০১৬ সালে বাংলাদেশের র‌্যাম্প কুইন খ্যাত বুলবুল টুম্পার গ্রুমিং ইনষ্টিটিউট রানওয়ে বাই বুলবুল টুম্পা’তে ফ্যাশন বিষয়ক গ্রুমিং শুরু করেন। কিন্তু গ্রুমিং শুরুর আগে থেকেই তিনি বিনোদনধারা ও বিনোদন জগৎ নামক দু’টি জনপ্রিয় ম্যাগাজিনে ২০১৫ সালে ঈদের বিশেষ সংখ্যায় প্রকাশিত পোশাকের ব্র্যান্ডের মডেল হিসেবে মিডিয়াতে যাত্রা শুরু করেন। ম্যাগাজিন দু’টিতে তার সহ শিল্পী হিসাবে ছিলেন জনপ্রিয় মডেল ঐশী স্বর্ণা। একই বছর তিনি জনপ্রিয় উপস্থাপক দেবাশীষ বিশ্বাসের উপস্থাপনায় ও রজত বাপ্পির পরিচালনায় স্যাভলন নিবেদিত একুশে টেলিভিশন, এটিএন বাংলা ও বৈশাখী টেলিভিশনে প্রচারিত তিন পর্বের ঈদের বিশেষ ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান আনন্দের ফেরিওয়ালাতে অভিনয় করেন। তার মন মুগ্ধকর অভিনয় দর্শক মহলে তখন বেশ সারা ফেলেছিল। যদিও ব্যবসায়িক ব্যস্ততার কারনে এরপর তিনি আর নিয়মিত অভিনয় করেননি। তবে তিনি অভিনয় না করলেও বেশ কিছু ম্যাগাজিন, জাতীয় পত্রিকা ও অনলাইন পত্রিকার ফ্যাশন বিষয়ক পাতা এবং বিভিন্ন পোশাকের ব্র্যান্ডের মডেল হিসাবে কাজ করেন। এর মধ্যে তিনি অন্যতম দৈনিক কালের কণ্ঠ, ভোরের পাতা (আনন্দ বাজার), ভোরের পাতা (ঈদ সংখ্যা, ২০১৭), মাসিক ম্যাগাজিন রোদশী’র (ঈদ সংখ্যা, ২০১৭), অনলাইন পত্রিকা টাইমস্ ২৪.পড়স, স্বাধীন বাংলা ডট কম, শুভ সকাল ডট কম ও তামিম’স লাইফ ষ্টাইল ইত্যাদি। শখের বসে তিনি ২০১৬ সালের নিজের লেখা “হাতটা বারাবে কি” শিরোনামে নিজ কণ্ঠে একটি গানও গিয়েছিলেন। গানটির শুর ও সঙ্গীত আয়োজন করেছিল জনপ্রিয় সঙ্গীত পরিচালক রিফাত আজমির। গানটির অডিও লিরিকাল ভার্সনটি জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল, টাইগার মিডিয়াতে প্রকাশিত হয়েছিল। ইউটিউব-এ গানটি প্রকাশিত হওয়ার পর এখন পর্যন্ত প্রায় আঠার হাজার মানুষ গানটি ভিউ করেছে। যদিও তাঁর ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত তেমন কোন টার্নিং পয়েন্ট আসেনি। কিন্তু এটা তার ক্যারিয়ারে বড় প্রাপ্তি ছিল। বর্তমানে তিনি মডেলিং থেকেও কিছুটা বিরত রয়েছেন। কারণ তিনি খুব শীঘ্রই মিরপুরে একটি নিজস্ব রেষ্টুরেন্ট ও ফ্যাশন হাউজ চালু করতে যাচ্ছেন। এসব কাজকর্ম নিয়েই তিনি বর্তমানে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তাঁর পাশাপাশি তিনি চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছেন। তিনি এখন নিয়মিত জিমে যাচ্ছেন এবং আগামী মাস থেকে বি.এ.এফ.টিতে একটি কোর্স শুরু করবেন। জনপ্রিয় কোরিওগ্রাফার রোহান-আরিফের নিজস্ব ডান্স একাডেমী ডিএমএস ফ্ল্যাস থেকে ডান্স শিখবেন এবং জনপ্রিয় অভিনেতা ও বাংলাদেশের মার্শাল আর্ট গুরু মাসুম পারভেজ রুবেল এর নিকট ফাইট শিখবেন। তবে এতো কিছুর ব্যস্ততার মাঝেও ভালো কোন কাজের সুযোগ পেলে তিনি অবশ্যই করবেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি অনেক মিশুক এবং অত্যান্ত ভাল মনের একজন মানুষ। আর তিনি মিডিয়াতে কাজ শুরু করেন তাঁর বাবার, ভাই-বন্ধু বাংলাদেশে জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল এর জনপ্রিয়তায় অনুপ্রায়িত হয়ে। তাঁকে দেখে অনুপ্রায়িত হলেও তিনি তার নিজ যোগ্যতা ও মেধা দিয়ে ভাল কাজের মধ্যে দিয়ে নিজেকে ভবিষ্যতে সাফল্যের চূড়ায় নিয়ে যেতে চায়। এই মানুষটির শুভ জন্মদিনে আমাদের পক্ষ থেকে রইল অনেক শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা। “শুভ জন্মদিন”